IIFL বন্ডে বিনিয়োগের মাধ্যমে ১০.৫০ শতাংশ হারে আয় করার দারুণ সুযোগ

Jan 23, 2019 7:30 IST 9271 views

যে রিটেল বিনিয়োগকারীরা তাঁদের ডেট ইনভেস্টমেন্ট থেকে আরও বেশি রিটার্ন পেতে চান, তাঁরা IIFL-এর নন-কনভার্টিবল ডিবেঞ্চারের (NCD) পাবলিক ইস্যু থেকে বছরে ১০.৫০ শতাংশের বেশি হারে আয় করতে পারেন।  যেখানে মার্কেট-লিঙ্কড সিকিউরিটি থেকে রিটার্নের পরিমান অনিশ্চিত এবং ফিক্সড ডিপোজিট থেকে রিটার্নের পরিমান ৬-৭ শতাংশের কাছাকাছি, সেখানে ১০.৫০ শতাংশ হারে রিটার্ন স্বাভাবিকভাবেই অত্যন্ত আকর্ষণীয়। 
নির্দিষ্ট আয়ের বিনিয়োগকারী, যাঁরা খুব কম রিটার্ন পেয়ে থাকেন তাঁদের কাছে IIFL-এর বন্ড থেকে টাকা রোজগারের এই সুযোগ অত্যন্ত ভাল খবর। সাধারণত সমস্ত NCD-ই এক্সচেঞ্জে তালিকাভূক্ত এবং নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে বাজারে ট্রেড করা যায়। ডিম্যাট অ্যাকাউন্ট থাকলেই একজন বিনিয়োগকারী এই বিনিয়োগ করতে পারেন। 
বিনিয়োগকারীদের লিকুইটিডি দিতে IIFL-এর ইস্যু করা NCD-গুলি BSE এবং NSE-তে তালিকাভূক্ত করা হবে। ১২০ মাসের মেয়াদে বিনিয়োগকারীরা মাসিক অথবা বার্ষিক কিস্তিতে পেমেন্ট করতে পারেন। এ ছাড়া ৩৯ মাস এবং ৬০ মাসের মেয়াদেও বিনিয়োগ করা যেতে পারে। বার্ষিক ১০.৩৫ শতাংশ সুদে IIFL বন্ড পাওয়া যায় ইনস্টিটিউশনাল ক্যাটেগরিতেও।
IIFL গ্রুপের IIFL ফিন্যান্স ১০০০ টাকা ফেসভ্যালুর এই বন্ড পাবলিক ইস্যু হিসেবে ছাড়া হবে ২০১৯ সালের ২২ জানুয়ারি, আগে এলে আগে পাবেন ভিত্তিতে। সমস্ত ক্যাটেগরিতেই ন্যূনতম অ্যাপ্লিকেশন সাইজ হল ১০০০০ টাকা।
ব্যবসার পরিমান বাড়াতে সিকিউরড এবং আনসিকিউরড রিডিমেবল নন-কনভার্টিবল ডিবেঞ্চারের মাধ্যমে বাজার থেকে ২০০০ কোটি টাকা তোলার পরিকল্পনা রয়েছে IIFL-এর। NCD ইস্যু নিয়ে IIFL গ্রুপের সিএফও-র বক্তব্য,“ এই ইস্যুর মাধ্যমে তোলা ফান্ড ব্যবহার করা হবে লেন্ডিং, ফিন্যান্সিং এবং সাধারণ কর্পোরেট উদ্দেশ্যে। IIFL গ্রুপের ইস্যু করা সমস্ত পুরনো বন্ডই লক্ষ্যমাত্রার থেকে বেশি বিক্রি হয়েছে এবং টাকা ফেরত দেওয়া হয়েছে নির্দিষ্ট সময়সীমার মধ্যেই।”
বিশেষজ্ঞরা সমসময়ই প্রতিষ্ঠিত, হাই রেটিং সম্পন্ন এবং ভাল ক্যাশ ফ্লো আছে, এই ধরনের কোম্পানি থেকে ডিবেঞ্চার সংগ্রহ করতে পরামর্শ দিয়ে থাকেন, যার প্রতিটি শর্তই পূরণ করে IIFL। অন্যতম প্রতিষ্ঠিত কোম্পানি হিসেবে গত ২৫ বছর ধরে বাজারে সম্মানের সঙ্গে আর্থিক পরিষেবা দিয়ে আসছে IIFL। ২০১৮ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর শেষ হওয়া অর্ধবর্ষের রিপোর্টে এই কোম্পানির শাখা IIFL ফিন্যান্স কর দেওয়ার পর ৩৫৭.২ কোটি টাকা মুনাফা করেছে, যেখানে বার্ষিক বৃদ্ধির হার ৬৯ শতাংশ। IIFL ফিন্যান্সের নেট ব্যবসার পরিমান ৪০০০ কোটি টাকা এবং অত্যন্ত ভাল মূলধন সম্পন্ন একটি NBFC। ২০১৮ সালের ৩০ সেপ্টেম্বরে টিয়ার ওয়ান ক্যাপিটালের ১৫.৫ শতাংশ ধরে কোম্পানির টোটাল ক্যাপিটাল অ্যাডেকোয়াসি রেশিও ছিল ১৮.৭ শতাংশ, যেখানে নির্ধারিত হার ছিল যথাক্রমে ১০ এবং ১৫ শতাংশ। এছাড়া CRISIL এই কোম্পানির রেটিং দিয়েছে এএ/স্টেবল, যা উচ্চ মানের নিরাপত্তার সূচক এবং যেখানে ডিফল্টার হওয়ার সম্ভাবনা অপেক্ষাকৃত কম।

Tags:

May I Help You

Submit